২০১৮ সালের প্রথম দিন পার করলাম। তবু মন টা পড়ে রইল ‘১৭ তে। পুরানো কে আকড়ে থাকা স্বাভাবিকভাবেই স্বভাবসুলভ। খেয়াল করে দেখেছি বেজোড় সাল গুলো শুভ। সেই হিসেবে ‘১৮ নিয়ে খুব কিছু আশা করছি না। তাই পিছন ফিরে ‘১৭ এর সাতকাহন লিখতে বসেছি।

১.
বছরের শুরুটা ঝঞ্ঝাময় ছিল। সাম্পর্কিক টানাপোড়ন এর যে রেশ আগের বছর শুরু হয়েছিল তার তেতো ভাব তীঘ্ন হতে থাকল ‘১৭ এর এক চতুর্থাংশ জুড়ে।

২.
বসন্ত আসতে আসতে দেশে যাবার জন্য মনে উচাটন শুরু হল। তড়িঘড়ি করে টিকেট কেটে সপ্তাহ দুয়েকের ছুটি নিয়ে যখন দেশে যাই যাই, আমার চাকুরির মেয়াদ তখন যায় যায়। ফেরার পথে দুবাই এ দৌলতিদের উচু উচু দালান দেখে বার্লিন ব্যাক করলাম।

৩.
নতুন চাকুরির আশায় যখন বুক বেঁধে আছি, তখন শরীরে অসুখ বাধলো। প্রথমবারের মত ছুরির তলায় বলি হলাম। রাতভর রোগী হয়ে ভিনদেশী হাসপাতালের বেড এ অচেতন হয়ে পড়ে রইলাম। সকাল হতে হতেই সেই বেড খালি করতে হবে বলে বাসায় চলে যেতে হল। ছাব্বিশ ঘন্টা না খেয়ে থাকার সাজা খাটলাম।

৪. এ চাকুরি। বছরখানেক ধরে চলা সিদ্ধান্তের সমাপ্তিতে চাকুরিটা দীর্ঘমেয়াদি হল। দ্বায়ীত্বের পাল্লা ভারী হবার সাথে সাথে আমি নিজেও ভারী হতে থাকলাম। লম্বাসময় চেয়ারে বসে থাকার কুফল।

৫.
বছরের পঞ্চম মাসে এসে বয়সের সাথে এক জোগ করার পালা। সাথে জুটল বাসা পাল্টানোর জ্বালা। শতাধিক মানুষের ভীড় ঠেলে ঠেলে বার্লিনে বাসা খুজেছি। অষ্টম মাসে এসে নতুন বাসায় উঠেছি।

৬. এ সফর। এই তালিকায় নতুন ছয়টা শহর যোগ করেছিঃ ন্যুরেম্বার্গ, আমস্টারডাম, ড্রেসডেন, টুরিন, মালাগা ও পোর্তো।

৭. এ তৃপ্তির সমাপ্তি। ২০১৭ তে অনেক বন্ধুজনের সাক্ষাত পেয়েছি। আমেরিকা থেকে মা এর মত মমতাময়ী ‘এলেন ময়’ ঘুরতে এসেছিলেন।

শীতের ছোট দিনের সূর্য টা খানিক্ষনের জন্য ঊকি দিয়েছে। শুভ লক্ষণ ।।


One thought on “সাত ‘১৭”

  1. Good summary.. Seems like u had a very eventful year !!!
    “আমেরিকা থেকে মা এর মত মমতাময়ী ‘এলেন ময়’ ঘুরতে এসেছিলেন।” – ইনি কে ???

Leave a Reply

Your email address will not be published.